চিত্র সূত্র : pixabay 

কর্মসূত্রে অনেক বাঙালি আজ প্রবাস মুখী। উন্নততর শিক্ষা ব্যবস্থা থেকে শুরু করে চাকরির আশায় বাঙালি আজ ঘর ছেড়েছে ।

এইসব নানান দেশে নানান ধরনের বিধিনিষেধ আরোপ করা আছে বহিরাগতদের জন্য।সেই সব বিধিনিষেধ বা নিষিদ্ধ নিয়ম-কানুনকে মাথায় রেখেই আমাদের সেই সব জায়গার সাথে নিজেদের মানিয়ে নিতে হয়।

 

Fast Moving Consumer Goods বলতে আমরা এমন ধরনের জিনিস গুলো কে বোঝায় যা খুব দ্রুত ও কম দামে বিক্রি করা সম্ভব ।এই সমস্ত সিপিজি ( CPG) product যেকোনো সহজলভ্য বস্তু কে তালিকাভুক্ত করা যায়। যেমন প্যাকেজ ফুড, নিত্যদিনের ব্যবহৃত বিভিন্ন দ্রব্য ,গৃহস্থালির কাজে লাগে এমন কিছু জিনিস ও অন্যান্য আরো অনেক কিছু ।

 

মূলত কম দাম হবার জন্য এই সমস্ত জিনিস গুলির চাহিদা সাধারণ মানুষের কাছে অনেক ।তাই চাকরি হিসেবে এফএমসিজি বা সিপিজি সেক্টর গুলিকে ভাবা যেতেই পারে ।

 

 ভারতবর্ষে প্রায় 10 শতাংশের মতো মানুষ ইংরেজি পড়তে ও বলতে পারে। সংখ্যাটি খুবই কম ,তথাপি যে কোন চাকরিতে ইংরেজি ভাষায় দক্ষ ক্যান্ডিডেট কেই অধিকার দেওয়া হয়। ইংরেজি সঠিকভাবে পড়তে ও বলতে অনেকেই পারে না । তার মানে এই নয় তার জীবন আজ স্তব্ধ।


 

এখন আমরা ইন্টারনেটের দুনিয়ায় বসবাস করছি । দুনিয়ার যেকোন প্রান্তের খবরই নিমেষের মধ্যে আমাদের হাতের মধ্যে চলে আসছে । কেননা এই ইন্টারনেটের ক্ষমতাকে ইংরেজি শেখার কাজে ব্যবহার করা যায় !

 

 

 

পশ্চিমবঙ্গে অবস্থিত উল্লেখযোগ্য শহর গুলির মধ্যে কলকাতা অন্যতম ।প্রতিবছর প্রায় ছয় হাজারেরও বেশি চাকরির সুযোগ তৈরি হয় এই শহরের ।প্রাচীন ঐতিহাসিক স্থাপত্য ,দৈনন্দিন অর্থনৈতিক অবস্থানের ওঠাপড়া ইত্যাদি নানান কারণে এই শহর সব সময় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে থাকে । আজ আমরা এই শহরের এমনই কিছু চাকরির সন্ধান করতে চলেছি । কে বলতে পারে! হতে গুলির মধ্যে কোনটি আপনার ক্ষেত্রে উপযুক্ত সাব্যস্ত হবে । 

 

   আজকের বিষয়

 

 

2011 সালের জনগণনা অনুযায়ী ভারতবর্ষের 8.03 শতাংশ ভারতীয় বাংলায় কথা বলে। সংখ্যাটি খুবই কম হলেও পরিসংখ্যান অনুযায়ী হিন্দির (43.63) পরে দ্বিতীয় স্থানে বাংলা ভাষার অবস্থান। এরপর তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে যথাক্রমে মারাঠি, তেলেগু ও তামিল কে দেখা যায়।