কলকাতায় চাকরি পাওয়ার জন্য কি কি বিবেচনা করতে হবে? | Mintly

কলকাতায় চাকরি পাওয়ার জন্য কি কি বিবেচনা করতে হবে?

 

 

গ্ৰ্যাজুয়েশন শেষ। ক‍্যারিয়ার জীবন শুরু করার সময় এসেছে। একটা ভাল চাকরির খুব প্রয়োজন। একেই কলকাতায় চাকরির সুযোগ দুষ্কর, তার ওপর আবার ইচ্ছেমতো চাকরি খুঁজে পেতে হবে। আর সেই বিষয়ে ই কিছু নিম্নলিখিত ধারণাগুলি পড়ুন।

 

আপনার কাছে, একটি ভালো চাকরির সংজ্ঞা কি?

 

অধিকাংশ মানুষ মনে করেন যে, কলকাতায় চাকরি পাওয়া যায় না। আমার মতে, এটি সম্পূর্ণভাবে নির্ভর করে আপনি কি খুঁজছেন তার উপর।

 

আপনি পেশায় ডাক্তার হলে হাসপাতালগুলিতে চাকরি পেতে পারেন অথবা নিজের ক্লিনিক শুরু করতে পারেন।

আবার, যদি একজন অ্যাকাউন্টেন্ট হন, তাহলে আপনি কোনো ‘বিগ্ ফোর’ বা ছোট অ্যাকাউন্টিং ফার্মগুলিতে যোগ দিতে পারেন।

আপনি যদি কোনো ব্যাঙ্কে কাজ করতে চান, তাহলে সংশ্লিষ্ট ব্যাঙ্ক পরীক্ষায় অংশ নিন এবং আবেদন করুন।

 

কলকাতায় প্রেক্টর অ্যান্ড গ্যাম্বল, ইউনিলিভার এবং অন্যান্য কোম্পানির অফিস আছে। মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে এই কোম্পানিতে কাজ করার জন্য এমবিএ ডিগ্রী থাকার প্রয়োজন।

ইঞ্জিনিয়ারদের সুযোগের ক্ষেত্রে বলা যেতে পারে যে-

যদি আপনি টি.সি.এস, কগনিজ্যান্ট বা আই.বি.এম - এ আই.টি রোলে কাজ চান তবে সহজেই এগুলি পেতে পারেন। শুধুমাত্র এই যে কাজ এবং পরিবেশের গুণমান তুলনামূলক অসাধারণ হবে না। কর্মক্ষেত্রে একটু-আধটু রাজনীতির জন্য প্রস্তুত থাকা দরকার।

অনেক কোম্পানির নাম উপরে উল্লিখিত আছে, তবে, মিন্টলি.ইন এ সহজ ইন্টারনেট সার্ফিং আপনাকে আরও নামের সঙ্গে যোগাযোগ করতে সাহায্য করতে পারে।

 

কলকাতায় চাকরি পেতে যে অসুবিধাগুলি লক্ষণীয়:

 

এটা সত্যিই কাজের ধরনের এবং বেতনের উপর নির্ভর করে, তবে সাধারণত এটি অধিকাংশ প্রবাসীদের জন্য একটি চ্যালেঞ্জ।

কলকাতাবাসীদের জন্য এটা অস্বস্তিজনক হয় যখন প্রবাসীরা কম বেতনের পরিবর্তে কাজ করতে ইচ্ছুক হন, চাকরির বাজারে এটি একটি নেগেটিভ প্রভাব ফেলে, বিশেষ করে ব্যবসা-বাণিজ্যে।

 

ওয়ার্কিং শিফট বদল: কলকাতার কর্মচারীদের জন্য একটি বড় সমস্যা হল যে তারা বেশিরভাগ ই 9টা- 5টা চাকরির মানসিকতা নিয়ে কাজ খুঁজতে চান। তবে বড় এবং উন্নয়নশীল সংস্থাগুলি 24 × 7 কাজ করার এবং করানোর মনোভাবাপন্ন। যদিও বর্তমানে টিসিএস, কগনিজ্যান্ট ইত্যাদি কয়েকটি উন্নত মাল্টিন্যাশনাল কর্পোরেশন ও অন‍্যান‍্য চাকরি যাতে মাল্টিপল শিফটে কাজ করার প্রয়োজন হয় সেগুলিতে এমপ্লয়ীদের মানসিকতার পরিবর্তন দেখা গেছে।

 

ফ্রেশার জব্স- ফ্রেশ ক‍্যান্ডিডেটদের জন্য কাজের পদ খুব সীমিত, কিন্তু একবার একটি উন্নত ম‍্যানেজমেন্ট স্তরে পৌঁছানোর পরে,কলকাতায় চাকরি খোঁজার বিকল্প পাওয়া মুশকিল নয়। আপনার বেতন সহকর্মীদের সমতুল্য না ও হতে পারে কারণ বেতন নির্দিষ্ট করার সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র উচ্চ পদ হিসাবে নয়, বসবাসের খরচ বিবেচনা করেও নিশ্চিত করা হয়।

কলকাতার কোম্পানি গুলি সাধারণত যেসমস্ত চ‍্যালেঞ্জ গুলির মুখোমুখি হয় এমন কিছু সমস্যা হল-

 

  • অরগানাইজেশনের উন্নতির জন্য যে থিংকিং ফ্রিকোয়েন্সির মধ্যে ম‍্যানেজমেন্টের ধারণা পরিবর্তন।

  • কোনো পরিস্থিতি পরিচালনা করতে এমপ্লয়ীদের কমিউনিকেশন স্কিল।

  • সাবর্ডিনেট্স দের দ্বারা টাস্ক / দায়িত্ব গুরুত্ব সহকারে নেওয়া।

  • ব্যক্তিগত দক্ষতার উন্নতির স্কিল শেখার জন্য ইন্টারেস্ট এর অভাব।

 

সার্চ অ্যাপস এ কর্মসংস্থানের সন্ধান:

বেশিরভাগ লোকজন ই এই টেক্নোলজির যুগে খবরের কাগজের ক্লাসিফায়েড অ্যাড এর থেকে বেশি সহায়ক মনে করেন ‘জব সার্চ অ্যাপস’ গুলি কে। নিজের উপযোগী ভালো কর্মসংস্থান খুঁজতে অনেক মূল্যবান সময় অপচয় করতে হয়। কারণ হিসেবে বলা যায় যে কি ওয়ার্ড ব‍্যবহার করে সাধারণ ইন্টারনেট সার্চ এ অনেক রকমের তথ্য পাওয়া যায় এবং তার মধ্যে ক‍্যান্ডিডেটদের পছন্দ অনুযায়ী করতে হয় যাচাই বাছাই।

তবে,  সার্চ অ্যাপস গুলির সাহায‍্যে আপনি কম সময়ের মধ্যেই পেয়ে যেতে পারেন প্রয়োজনীয় সহায়তা।

 

ভালো চাকরি পাওয়া সম্পূর্ণ ভাবে নির্ভর করে শিক্ষাগত যোগ্যতার ওপর এবং তার সাথে উপস্থিত বুদ্ধি আপনাকে সঠিক কর্মসংস্থান খুঁজে পেতে সাহায্য করে। আপনি যদি সত্যিই কলকাতা য় ভালো চাকরির প্রত্যাশী হয়ে থাকেন এবং উপরি উল্লিখিত সমস্যার সম্মুখীন হওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকেন, তবে শীঘ্রই মিন্টলি.ইন- এ কলকাতায় উপলব্ধ চাকরীগুলি দেখুন এবং সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পরিকল্পনা করুন।

 

 

 

 

Download Jobseeker app

Download Employer app


Recent Blogs